২০ হাজার টাকায় সেরা ১০টি বাজেট স্মার্টফোন

0
278

২০-হাজার-টাকায়-সেরা-১০টি-বাজেট-স্মার্টফোনবর্তমান মোবাইল ফোন বাজারে ফোনের সহজল্যভতা এর দাম কমিয়ে দিয়েছে কয়েকগুণে। যার কারণে আজ অনেক কম দামেই ভালো ভালো ফোন পাওয়া যাচ্ছে বাজারে।

প্রতিটি ব্রান্ডই তার ফোনের সাথে রাখছে কিছু চমক। সবার কাছেই যা হয়ে উঠছে বেশ জনপ্রিয়। ফলে গ্রাহকরা একবার এইটা কিনতে চান তো আরেকবার ওইটা কিনতে চান।
বাজারে নতুন স্মার্টফোন  সব কিনে ফেলা সম্ভব না। যার কারণে নিজের প্রয়োজন অনুযায়ী ফোন নির্বাচন করা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। সেই সাথে বাজেটের কথাও আবার মাথায় রাখতে হবে।
এছাড়াও আপনি বাজেটের মধ্যেই অন্যান্য ফোন খোজা শুরু করতে পারেন। অধিকাংশই মানুষই এখন ২০ হাজার টাকার মধ্যে স্মার্টফোন গুলোর দিকে বেশি আকৃষ্ট হচ্ছেন।
এ পরিস্থিতি কোম্পানিগুলোকেও বেশ ভাবিয়ে তুলেছে। যার কারণে তারা এই বাজেটের মধ্যেই অহরহ ফোন রিলিজ করছেন তারা। এর জন্য আবার গ্রাহকরাও বুঝতে পারছেন না যে কোনটা ছেড়ে কোনটা কিনবেন।
প্রয়োজনের তাগিদেই তাদের সার্চ করতে হচ্ছে বাজেটের মধ্যে ভালো ফোন নিয়ে। তবে সেইদিক দিয়েও বেশির ভাগ ওয়েবসাইটই খারাপ ফোনগুলোকে ভালো বলে চালিয়ে দিচ্ছে।  সৃষ্টি হচ্ছে এক বিশাল ঝামেলা, পড়তে হচ্ছে এক মহাবিপদে।
গ্রাহকদের এই ঝামেলা এড়ানোর জন্য আমাদের আজকের এই আর্টিকেল ২০ হাজার টাকায় সেরা ১০টি স্মার্টফোন।
আশা করি আপনার বাজেটের মধ্যে কোন ফোনগুলো ভালো তা বুঝে নিতে পারবেন এই আর্টিকেল পড়েই। ঝামেলাও এড়াতে হবে না আর।
তাহলে দেরি না করে চলুন শুরু করা যাক।

২০ হাজার টাকায় সেরা ১০টি স্মার্টফোন

হাজারও ফোনের ভিড়ে কোনটি আপনার প্রয়োজনের এবং পছন্দের?
 তা বেছে নেয়া বেশ কষ্টকর এবং সেই সাথে মাঝে মাঝে অসম্ভবও। তবে ঝামেলা কিংবা বিপদ এড়াতে আমাদের এই কষ্টটুকু করতেই হবে। আর তা করার জন্য গ্রাহক জনপ্রিয় এবং পজিটিভ রিভিউ সম্বলিত ফোনগুলোর দিকে ক নজর দেয়া যেতে পারে।
আর আপনাদের সেই কাজটাকেই সহজ করতে ২০ হাজার টাকায় সেরা ১০টি স্মার্টফোন সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি।
Walton RX8 Mini 
দেশী ব্রান্ড ওয়ালটন এবার বাজারে নিয়ে এসেছে স্নাপড্রাগন প্রসেসর সম্বলিত এই মডেলটি। স্ন্যাপড্রাগন ৬৬০ ভার্শন ব্যবহার করা হয়েছে ফোনটিতে। যার সাথে থাকছে ৬.৩ ইঞ্চির স্ক্রিন। ৪ জিবি র‍্যামের পাশাপাশি এখানে যুক্ত করা হয়েছে ৬৪ জিবি ইন্টার্নাল মেমোরি। লিথিয়াম পলিমারের 3600 mAh ব্যাটারীর সাথে রয়েছে ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং।
স্পেশাল ফিচার হিসাবে এর সাথে যুক্ত করা হয়েছে Security slider যা আপনার প্রাইভেসি নিয়ন্ত্রণ করবে। ট্রিপল ক্যামেরার পাশাপাশি সামনে যুক্ত হয়েছে ১৩ মেগা-পিক্সেলের একটি সেলফি ক্যামেরা। আর মাত্র বারো হাজার টাকায় আপনি ফোনটিকে কিনতে পারবেন কাছের কোনো দোকান থেকে।
Techno Spark 6 
৬.৬ ইঞ্চির একটি বড় স্ক্রিন এড হয়েছে ফোনটিতে। আবার স্ক্রিনের সাথে রয়েছে 720×1640 পিক্সেল রেসুল্যুশন। অক্টা-কোর এর MediaTek Helio G70 প্রসেসর যা ভালো পারফরমেন্স দিবে। সেই সাথে  রয়েছে ১৬ মেগা পিক্সেলের মেইন ক্যামেরা ও কোয়াড ক্যামেরা ফিচার। ক্যামেরার ভালো দিকটা এই যে, অটো-ফোকাস ফিচারটি ইন-বিল্ট রয়েছে।
অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে যুক্ত হয়েছে HiOS 7.0 এবং এন্ড্রোয়েড ১০। ৪ জিবি র‍্যামের এই ফোনটিতে রয়েছে ৬৪ জিবি ইন্টার্নাল মেমোরি । আর  সবচেয়ে বড় বিষয় এখানি যেটি তা হলো এর ব্যাটারী। 5000 mAh এর একটি ব্যাটারী পাশাপাশি আপনি পাচ্ছেন ১৮ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট।
Infinix Hot 10 
Android 10 অপারেটিং সিস্টেম সম্বলিত ইনফিনিক্স হট ১০ ফোনটির মূল্য মাত্র ১২৯৯০ টাকা। থাকছে ৫২০০ অ্যাম্পিয়ারের একটি বিশাল ব্যাটারী । ব্যাটারীর জন্য থাকছে ১০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং ফিচার। ফোনের চার্জ নিয়ে খুব বেশি হয়রান হতে হবে না।
সেই সাথে রয়েছে 6.78 ইঞ্চির একটি বড় স্ক্রিন। যা ভিডিও দেখা থেকে শুরু করে অনলাইনে ক্লাসেও বেশ সহায়ক হবে। অক্টা-কোর প্রসেসরের Mediatek Helio G70 চিপসেট দেয়া হয়েছে হার্ডওয়ার সেকশনে। যার ফলে ভালো পারফরমেন্স আশা করতে পারেন। ক্যামেরা সেকশনে ১৬ মেগা পিক্সেলের একটি মেইন ক্যামেরা যুক্ত করা হয়েছে। পাশাপাশি থাকছে একটি লো-লাইট ক্যামেরা। যা আপনাকে কম আলোতেও ভালো ছবি দিতে পারবে।
Oppo A12 
বাজেটের মধ্যে অন্যতম এবং সেরা একটি ফোন অপ্পো। যা বাজেরে ১৩৯৯০ টাকায় খুব সুলভ মূল্যেই পেয়ে যাচ্ছেন। 4230mAh ব্যাটারী সম্বলিত এই ফোনটিতে থাকছে ৪ জিবি র‍্যাম।
এরপরই রয়েছে ৬৪ জিবির এক বিশাল ইন্টার্নাল স্টোরেজ। MediaTek Helio P35 প্রসেসর যুক্ত হওয়ার ফোনটির পারফরমেন্সও বেশ ভালো। অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে এখানে যুক্ত করা হয়েছে এন্ড্রোয়েড ৯। প্রাইমারি ক্যামেরা হিসাবে আপনার জন্য থাকছে ১৩ মেগা-পিক্সেলের ক্যামেরা। সেই সাথে 6.22 ইঞ্চির এক বিশাল স্ক্রিন। যা ভিডিও এবং ক্লাস করার জন্য ভালো একটা অপশন। ফোনটির বডিতে আপনি পাবেন পলিকার্বনেট। যা নিঃসন্দেহে খুব ভালো ইউজার এক্সপেরিয়েন্স দিবে।
Realme Narzo 30A
কম দামে অসাধারণ স্পেসিফিকেশন নিয়ে লিস্টে সেরার কাতারে রয়েছে এই ফোনটি। নজর কাড়া মিনিম্যাল নচ ডিজাইনটি আকৃষ্ট করেছে হাজারও গ্রাহককে। লিথিয়াম পলিমারের 6000 mAh এর ব্যাটারীর পাশাপাশি ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জিংও যুক্ত করা হয়েছে। সেই সাথে রয়েছে রিভার্স চার্জিংও।
 ৪ জিবি র‍্যামের পাশাপাশি আপনি এখানে পাবেন ৬৪ জিবি ইন্টার্নাল স্টোরেজ। Mediatek Helio G85 চিপসেট এর পাশাপাশি এতে যুক্ত হয়েছে এন্ড্রোয়েড ১০। ক্যামেরা সেকশনে রয়েছে ১৩ মেগা পিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরা। সেই সাথে ৮ মেগা পিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা।
Realme 5i
6.52 ইঞ্চির এক দারুণ ডিসপ্লে সাইজ নিয়ে বাজারে আসলো রিয়ালমি ৫আই। 720 x 1600 পিক্সেলের রেসুল্যুশন যুক্ত করা হয়েছে IPS LCD Touchscreen এর সাথে। স্ক্রিন প্রোটেকশনের জন্য এখানে যুক্ত হয়েছে গোরিলা গ্লাস। পাশাপাশি মাল্টিটাচ ফিচারটিও ইনেবল করা হয়েছে। লিথিয়াম পলিমারের 5000 mAh এর একটি ব্যাটারী এখানে দেয়া হয়েছে যাতে আপনি পাবেন ১০ ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং। এন্ড্রোয়েড পাই ভার্শন যুক্ত করা হয়েছে অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে। Qualcomm Snapdragon 665 প্রসেসরটিও থাকবে তারই সাথে। যার জন্য আপনি খুব ভালো পারফরমেন্স আশা করতে পারেন।
Samsung Galaxy M12 
১২৮ জিবির বিশাল এক ইন্টার্নাল স্টোরেজ নিয়ে বাজারে এসেছে স্যামসাং এর এই মডেলটি। মিনিম্যাল নচ ডিজাইনের পাশাপাশি এখানে থাকছে 6.5 ইঞ্চির বিশাল স্ক্রিন। লিথিয়াম পলিমারের 6000 mAh সম্বলিত একটি ব্যাটারীর পাশাপাশি পাচ্ছেন ১৫ওয়াট ফাস্ট চার্জিং ক্যাপাব্লিটি।
অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে রয়েছে এন্ড্রোয়েড ১১ এবং চিপসেট এর জন্য থাকছে Exynos 850। ৪৮ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরা এবং কোয়াড ক্যামেরা এতে এনে দিয়েছে অনন্যতা।মাল্টিটাচ ফিচারের সাথেই যুক্ত আছে 90Hz রিফ্রেশিং রেট। তবে কোনো গোরিলা গ্লাস দেয়া হয়নি ফোনটিতে। যার কারণে আপনাকে অবশ্যই সতর্ক থাকতে হবে।
Vivo Y20G
IPS LCD Touchscreen এর পাশাপাশি 6.51ইঞ্চি এর  এক বিশাল ডিসপ্লে সাইজ নিয়ে হাজির ভিভোর এই মডেল। মাল্টিটাচ ফিচার ইনেবল করা হয়েছে এতে। তবে আপনি কোনো গোরিলা গ্লাস প্রোটেকশন এতে পাবেন না। ট্রিপল ক্যামেরার প্রাইমারি ক্যামেরাটি ১৩ মেগা-পিক্সেলের। সাথে সেলফি ক্যামেরাটি ৮ মেগা-পিক্সেলের। লিথিয়াম পলিমারের 5000 mAh ব্যাটারীর ব্যাক-আপ বেশ ভালোই। সেই সাথে ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং এর কারণে এ নিয়ে কোনো টেনশনই করতে হবে না। এন্ড্রোয়েড ১০ অপারেটিং সিস্টেম এখানে যুক্ত করা হয়েছে। ঠিক তারই সাথে Mediatek Helio G80 চিপসেট এভেইলএবল। ইন্টার্নাল স্টোরেজ হিসাবে পাবেন ১২৮ জিবি। যেখানে র‍্যাম হিসাবে থাকছে ৬ জিবি।
Symphony Z50
ডিসপ্লে সাইজ 6.5 ইঞ্চি সেই সাথে 2.6 GHz এর একটি  অক্টা-কোর প্রসেসরে। একেবারেই কম দামে, স্যাম্ফোনির এই মডেলটি পাচ্ছেন মাত্র ১০৯৯০ টাকায়। ট্রিপল ক্যামেরা যুক্ত করা হয়েছে যাতে আপনি পাবেন ১৩ মেগা-পিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরা। সাথে ৮ মেগা-পিক্সেলের সেলফি ক্যামেরাও রয়েছে। ৪ জিবি র‍্যামের পাশাপাশি রয়েছে ৬৪ জিবি ইন্টার্নাল স্টোরেজ। ব্যাটারীর স্থানে এখানে রয়েছে ৪০০০ অ্যাম্পিয়ারের একটি ব্যাটারী।
1600 x 720 পিক্সেলের রেসুল্যুশন আপনাকে দেবে পরিষ্কার ভিডিও কোয়ালিটি। অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে এখানে রয়েছে এন্ড্রোয়েড পাই। মাল্টি টাচ ইনেবল রয়েছে। তবে ওয়াটার রেসিস্টেন্স নেই এই মডেলে।
Xiaomi Redmi Note 10 
সুপার অ্যামোলেড টাচস্ক্রিন নিয়ে ২০ হাজারের মধ্যেই হাজির শাওমির রেডমি নোট ১০ মডেলটি। কোয়াড ক্যামেরায় যুক্ত হয়েছে ৪৮ মেগা-পিক্সলের প্রাইমারি ক্যামেরা। সেলফি ক্যামেরা হিসাবে পাবেন ১৩ মেক্সাপিক্সেল। যা এই রেটে ভালো বলেই পরিচিত। 5000 mAh ব্যাটারীর ব্যাক-আপ যেমন ভালো তেমনি এর সাথে পাচ্ছেন ৩৩ ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং। যার নিশ্চয়তা হলো ২৫ মিনিটে ৫০% এবং ৭৪ মিনিটে ১০০% চার্জ সম্পূর্ণ করা।
প্রসেসর হিসাবে সবাই যা চায় সেই স্নাপড্রাগন 678 ব্যবহার করা হয়েছে এখানে। সাথে রয়েছে এন্ড্রোয়েড ১০ অপারেটিং সিস্টেম । নোট ৯ এর মতো এখানেও রয়েছে পানচ হোল ডিজাইন। যা নজর কারার মতো। স্ক্রিন প্রোটেকশনের জন্য এড হয়েছে গোরিলা গ্লাস ৩।
শেষ কথাঃ
একটা ভালো ফোনের কথা ভাবলেই আপনার মাথায় হয়তো এমন কিছুর চিন্তা আসবে যার মধ্যে সব কিছুই রয়েছে। কিন্তু বাস্তবে তা সম্ভব না। আর সব কিছুর প্রয়োজনও তেমন পড়বে না। সেক্ষেত্রে যে জিনিসটার প্রতি খেয়াল রাখি জরুরি তা হলো প্রয়োজন এবং পছন্দ। তাই আপনার প্রয়োজনকে প্রাধান্য দিয়ে ফোন চয়েজ করুন। সময় স্বল্পতা থাকলে উপরের লিস্টটা তো রয়েছেই।

আপনার মন্তব্য লেখার জন্য..

Please enter your comment!
Please enter your name here